Knowledge Encyclopedia Series In Bengali

Knowledge Encyclopedia Series In Bengali
Knowledge Encyclopedia Series In Bengali

Knowledge Encyclopedia Series In Bengali

Knowledge Encyclopedia Series In Bengali- আজ আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি মহান ব্যক্তিদের Knowledge Encyclopedia Series In Bengali. মহান ব্যক্তি আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা। তাঁদের জীবনের ক্ষুদ্রতম অংশগুলি আমাদের জন্য শিক্ষামূলক হতে পারে। বর্তমানে আমরা এই মহান ব্যক্তিদের ভুলতে বসেছি। যাঁরা যুগ যুগ ধরে তাদের কর্ম ও খ্যাতির মধ্য দিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন এবং জ্ঞান, বিজ্ঞান, শিল্প ও সাহিত্যের জগতে এক অনন্য অবদান রেখেছেন এবং তাঁদের শ্রেষ্ঠ গুণাবলী, চরিত্র দ্বারা দেশ ও জাতির গৌরব বৃদ্ধি করেছেন। সেইসব মহান ব্যক্তিদের Knowledge Encyclopedia Series In Bengali সম্পর্কে এখানে জানব।

মেন্ডেলিফ কে ছিলেন?

ডিমিত্রি ইভানোভিচ মেন্ডেলিফ ছিলেন একজন রুশ রসায়নবিদ। জীবনকাল ১৮৩৪-১৯০৭। মৌলিক পদার্থের ক্ষেত্রে তিনি পিরিয়ডিক টেবল গঠন করেন। ১০১ নং মৌলিক পদার্থটি তারই নামে নামাঙ্কিত।

মুন্সী প্রেমচাঁদ কে?

উর্দু ও হিন্দী সাহিত্যে একজন বিখ্যাত লেখক মুন্সী প্রেমচাঁদ। আসল নাম ধনপতি। জীবনকাল ১৮৮০-১৯৩৬। তাঁর বিখ্যাত উপন্যাস ‘গোদান’, ‘নির্মলা’।

মাইকেল মধুসূদন দত্ত কে ছিলেন?

মাইকেল মধুসূদন দত্ত বাংলা সাহিত্য তথা ভারতীয় সাহিত্যের এক দুর্লভ প্রতিভা। তিনিই সর্বপ্রথম বাংলায় অমিত্রাক্ষর ছন্দে কবিতা রচনা করেছিলেন। তাঁর বিখ্যাত রচনা ‘মেঘনাদ বধ কাব্য’, ‘ব্রজাঙ্গনা কাব্য’, ‘চতুর্দশপদী কবিতাবলী’ ইত্যাদি। ইংরাজীতে তিনি ‘ক্যাপটিভ লেডি’ লিখেছিলেন। জন্ম ১৮২৪। মৃত্যু ১৮৭৩। তিনি খ্রীষ্টধর্ম গ্রহণ করেছিলেন। তাঁর সমাধি লিপি অপরূপ।

মার্টিন লুথার কিং কে ছিলেন?

মার্টিন লুথার কিং ছিলেন মার্কিনী নিগ্রো যাজক ও নেতা। জন্ম ১৯২৯। শান্তির জন্য নোবেল পুরস্কার পান ১৯৬৪ সালে। তিনি ১৯৬৮- তে নিহত হন।

মহাত্মা গান্ধী কে ছিলেন?

মহাত্মা গান্ধী অর্থাৎ মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী ছিলেন ভারতের আপামর জনসাধারণের একান্ত প্রিয় নেতা। হিন্দু মুসলিম একতা স্থাপনই ছিল তাঁর জীবনব্রত। সাধারণ মানুষের মনে স্বাধীনতার চেতনা জাগ্রত করেছিলেন তিনিই। অহিংস অসহযোগ আন্দোলন তাঁরই সৃষ্টি। গান্ধীজীর জন্ম হয় ২ অক্টোবর, ১৮৬৯ সালে রাজকোটে। ১৯৪৮ সালের ৩০ শে জানুয়ারী দিল্লীতে আততায়ীর গুলিতে তিনি নিহত হন।

মাইকেল জ্যাকসন কে?

মাইকেল জ্যাকসন পপ-সংগীত জগতে এক জনপ্রিয়তম শিল্পী। পৃথিবীর সব দেশেই মাইকেল জ্যাকসনের অনুষ্ঠানে তিল ধারণের জায়গা থাকে না। বিদ্যুৎগতি নাচের মাধ্যমে সংগীতের মূর্ছনা তোলেন মাইকেল জ্যাকসন। বিভিন্ন সেবামূলক কাজে লক্ষ লক্ষ ডলার দান করেন মাইকেল জ্যাকসন এ খ্যাতি ও তাঁর আছে।

তিনি সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন। প্রথম আত্মপ্রকাশ ১৯৭৭ সালে সিডনি লুমেট পরিচালিত ‘দা উইন’ ছবিতে। জন্ম ১৯৫৮ সালের ২৯ শে আগস্ট আমেরিকার ইন্ডিয়ানার গ্যারি শহরে। মাইকেল জ্যাকসনের সর্বপ্রথম সোলো অ্যালবাম ‘গট টু বি দেয়ার’ প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আশি লক্ষ কপি বিক্রি হয়।

Knowledge Encyclopedia Series In Bengali

ম্যাক্স প্ল্যাঙ্ক কে?

ম্যাক্স প্ল্যাঙ্ক একজন খ্যাতনামা জার্মান পদার্থবিদ। আলোকের প্রকৃতি নিয়ে তিনি গবেষণা করেন। ‘কোয়ান্টাম তত্ত্ব’ এর জন্য ১৯১৮ সালে তিনি নোবেল পুরস্কার পান। তাঁর জন্ম হয় ১৮৫৮ সালে, দেহাবসান ১৯৪৭ সালে।

মাদার টেরিজা কে?

মাদার টেরিজা এক মহীয়সী সেবাব্রতী রমণী। দুঃস্থ, সহায়সম্বলহীন শিশু ও রোগীর সেবায় উৎসর্গীকৃতা এই মহিলার প্রকৃত নাম অ্যাগনেস গুইক্সিয়া বোজাক্সিয়া। জন্ম ১৯১০ সালে যুগোশ্লাভিয়ায়। পিতামাতা আলবেনিয়।

ভারতে আসেন ১৯২৮ সালে। ১৯৭০ সালে পোপের শান্তি পুরস্কার পান। ১৯৭৮ – এ ম্যাগসেসে পুরস্কার ও ১৯৭৯ – তে নোবেল শান্তি পুরস্কার পান। তিনি ভারতীয় নাগরিক। ‘নির্মল হৃদয়’ অনাথ আশ্রম প্রতিষ্ঠা তাঁর অন্যতম শ্রেষ্ঠ কীর্তি। তাঁর প্রয়াণ ঘটে ১৯৯৭ সালের ৬ সেপ্টেম্বর কলকাতা শহরে।

মূলকরাজ আনন্দ কে?

মূলকরাজ আনন্দ একজন বিখ্যাত ভারতীয় সাহিত্যিক। তিনি বহু গ্রন্থের রচয়িতা। এর মধ্যে বিখ্যাত হল ‘কুলি’, ‘অদ্যুৎ’ ইত্যাদি। জন্ম ১৯০৫।

যীশুখ্রীষ্ট কে ছিলেন?

যীশুখ্রীষ্ট ছিলেন খ্রীষ্টধর্মের প্রবর্তক। তিনি যোশেফ ও মেরীর সন্তান। ২৫ শে ডিসেম্বর বেথলেহেম নগরে তাঁর জন্ম হয়। মানবপ্রেমই যীশুর বাণী। তাঁকে ক্রুশবিদ্ধ করা হয়। শুক্রবার তাঁকে ক্রুশবিদ্ধ করা হয়, তাই সেই দিনের নাম গুড ফ্রাইডে।

যোহান কেপলার কে ছিলেন?

যোহান কেপলার ছিলেন একজন জার্মান জোতির্বিদ। জীবনকাল ১৫৭১-১৬৩০। তিনিই প্রথম প্রমাণ করেন। গ্রহগুলো সূর্যের চারপাশে ডিম্বাকৃতি পথে পরিক্রমা করে।

Knowledge Encyclopedia Series In Bengali

যোহান গুটেনবার্গ কে?

যোহান গুটেনবার্গ ছিলেন একজন জার্মান মুদ্রণ বিশারদ। জীবনকাল ১৪০০-৬৮। ১৪৫৬ সালে তিনিই প্রথম টাইপ থেকে মুদ্রণের কাজ করেন।

যোসেফ লিষ্টার কে?

যোসেফ লিষ্টার ছিলেন একজন সুবিখ্যাত শল্যচিকিৎসক। তাঁর জন্ম হয় লন্ডনে ১৮২৭ খ্রীষ্টাব্দের ৫ ই এপ্রিল। যোসেফ লিষ্টার আবিষ্কার করেন বীজবারক বা অ্যান্টিসেপটিক পদার্থ। এর ফলে মানুষ অস্ত্রোপাচারের পর বিষাক্ত হাওয়ার হাত থেকে রক্ষা পায়। তিনি প্রথম দেখান কার্বলিক অ্যাসিড ব্যবহারে জীবাণু সংক্রমণ বন্ধ হয়। পরে চিকিৎসা বিজ্ঞানে অন্য বীজবারক ব্যবহার শুরু হলেও পথ প্রদর্শক ছিলেন লিষ্টার। তাঁর মৃত্যু হয় ১৯১২ সালের ১০ ই ফেব্রুয়ারী।

রাফায়েল কে?

রাফায়েল ছিলেন ‘রেনেসাঁ’ আমলের ইতালীয় একজন বিখ্যাত চিত্রশিল্পী। জীবনকাল ১৪৮৩-১৫২০। তাঁর বিখ্যাত চিত্র হল ড্রেসডেনের ‘সিস্তাইন ম্যাডোনা’।

রুশো কে?

জাঁ জাক রুশো ছিলেন ফরাসী দার্শনিক ও চিন্তাবিদ। জীবনকাল ১৭১২-৭৮। তাঁর বিখ্যাত রচনা হল ‘দ্য সোস্যাল কন্‌ট্র্যাক্ট’। তাঁর চিন্তাভাবনাই ফরাসী বিপ্লব ত্বরান্বিত করেছিল।

রালফ ওয়ালডো এমার্সন কে?

রালফ ওয়ালডো এমার্সন ছিলেন বিখ্যাত আমেরিকান কবি ও চিন্তানায়ক। জীবনকাল ১৮০৩-৮২। তাঁর কবিতার মধ্যে বিখ্যাত হল ‘উডনোটস’, ‘টার্মিনাস’, ‘দি প্রবলেম’ ইত্যাদি।

রেনে দেকার্তে কে?

রেনে দেকার্তে একজন খ্যাতনামা ফরাসি অঙ্ক শাস্ত্রবিদ্। তাঁর জন্ম ১৫৯৬, মৃত্যু ১৬৫০ সালে। তাঁকেই আধুনিক দর্শনের অগ্রদূত আখ্যা দেওয়া যায়।

রবার্ট কখ কে ছিলেন?

বরার্ট কখ ছিলেন একজন খ্যাতনামা জার্মান চিকিৎসক ও বিজ্ঞানী। বিশেষ বিশেষ রোগের কারণ যে বিশেষ ধরনের জীবাণু একথা রবার্ট কখই প্রমাণ করেন। যক্ষ্মা ও কলেরা রোগের জীবাণু তিনিই চিহ্নিত করেন। কখ জন্মেছিলেন ১৮৪৩ সালে জার্মানীতে। তাঁর মৃত্যু হয় ১৯১০ সালে।

রাসপুটিন কে?

রাসপুটিন একজন রুশ কৃষক। উচ্চাকাঙ্ক্ষী রাসপুটিন জার দ্বিতীয় নিকোলাসের রাজত্বের সময় জারিনার উপর প্রভাব বিস্তার করেন। জীবনকাল ১৮৭১-১৯১৬। শেষ পর্যন্ত তিনি নিহত হন।

রাজা রামমোহন রায় কে ছিলেন?

রাজা রামমোহন রায় ছিলেন বাংলা তথা ভারতের এক যুগপুরুষ। তাঁর জীবনকাল ছিল ১৭৭৪-১৮৩৩। পাশ্চাত্য শিক্ষা ও স্ত্রী শিক্ষা প্রসার, ইত্যাদি সমাজ সংস্কার মূলক কাজে রামমোহন অগ্রণী ভূমিকা নেন। তাঁরই চেষ্টায় সতীদাহ প্রথা বন্ধ হয়। নানা বাধা অগ্রাহ্য করে মোগল সম্রাট বাহাদুর শাহের দূত হিসেবে তিনি বৃটিশ পার্লামেন্টে নিজের মত প্রতিষ্ঠা করেন। কুসংস্কারাচ্ছন্ন হিন্দুধর্মের প্রতি আস্থা হারিয়ে তিনি ব্রাহ্মধর্ম প্রচার ও প্রবর্তন করেন।

রাজা রামমোহন রায়

রানী রাসমণি কে ছিলেন?

রানী রাসমণি ছিলেন কলকাতার জানবাজারের মাড় বংশের রাজা প্রীতিরামের পুত্রবধূ ও রাজচন্দ্রের স্ত্রী। রানী রাসমণি ছিলেন সে যুগের এক মহীয়সী নারী। তাঁর জন্ম হয় ১৮৯৩ সালে হালিশহরের কোনা গ্রামে। দানশীলা, তেজস্বী রানী রাসমণিই ১৮৫৫ সালে প্রতিষ্ঠা করেন। দক্ষিণেশ্বর কালীবাড়ি। শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংস দক্ষিণেশ্বরে পুরোহিত হয়ে এসেছিলেন। রানী রাসমণিই ইংরেজ কোম্পানীর কাছ থেকে জেলেদের বিনাশুল্কে মাছ ধরার ব্যবস্থা চালু করেছিলেন যে নিয়ম আজও বর্তমান। তাঁর জীবনাবসান হয় ১৮৬১ সালের ১৯ শে ফেব্রুয়ারী।

রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব কে ছিলেন?

শ্রীশ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব ছিলেন এক যুগাবতার মহাপুরুষ। তাঁর আগের নাম ছিল গদাধর চট্টোপাধ্যায়। তাঁর জন্ম হয় ১৮৩৩ সালে। মহীয়সী রানী রাসমণির অনুরোধে তিনি দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে সেবাইতের কাজ গ্রহণ করেন। তাঁর কাছে সব মানুষেরই ছিল সমান অধিকার। ১৮৮৬ সালে তাঁর মহাপ্রয়াণ হয়। স্বামী বিবেকানন্দ তাঁর প্রধান শিষ্য।

রণজিৎ সিংজী কে?

রণজিৎ সিংজী বিখ্যাত ভারতীয় ক্রিকেট খেলোয়াড়। তিনি ইংল্যান্ড দলেও নির্বাচিত হন। তাঁরই সম্মানে রঞ্জি ট্রফি খেলা হয়। জীবনকাল ১৮৬২-১৯৩৩।

রোমাঁ রঁল্যা কে?

রোমাঁ রঁল্যা ছিলেন বিখ্যাত ফরাসী সাহিত্যিক। জীবনকাল ১৮৬৬-১৯৪৪। তাঁর বিখ্যাত রচনা হল দশ খণ্ডে লেখা ‘জাঁ ক্রিস্তফ’। তিনি ১৯১৫ সালে নোবেল পুরস্কার পান।

রদ্যা কে?

রঁদ্যা একজন বিশ্ববিখ্যাত ভাস্কর। তাঁর জন্ম হয় ১৮৪০ খ্রীষ্টাব্দের ১২ ই নভেম্বর ফ্রান্সের প্যারী শহরে। দারিদ্র্যের মাঝখানেই কেটেছিল রঁদ্যার বাল্যজীবন। তিনি ব্রোঞ্জ ও পাথরে অসামান্য ও উৎকৃষ্ট নানা ভাস্কর্য গড়ে তুলেছিলেন। তাঁর তৈরি বিখ্যাত ভাস্কর্যের নিদর্শন হল ‘দি থিঙ্কার’, ‘আদম’, ‘দি ব্রোকেন লিলি’ ইত্যাদি। রঁদ্যার মৃত্যু হয় ১৯১৭ সালের ১৭ ই নভেম্বর।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কে ছিলেন?

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বিশ্ব তথা ভারতের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি এবং চিন্তা ও শিক্ষাবিদ। জোড়াসাঁকো ঠাকুর বাড়িতে তাঁর জন্ম হয় ২৫ শে বৈশাখ ১২৬৮। পিতা মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর। শান্তিনিকেতনের শিক্ষাব্যবস্থা তাঁর অনন্য কীর্তি। ‘গীতাঞ্জলি’ রচনার জন্য ১৯১৩ সালে তিনি নোবেল পুরস্কার পান। উপন্যাস ছোটগল্প, সঙ্গীত সর্বত্রই ছিল তাঁর অবাধ বিচরণ। জালিয়ানওয়ালাবাগে গুলি চালনার ঘটনার প্রতিবাদে তিনি ‘নাইট’ উপাধি ত্যাগ করেন। মহাপ্রয়াণ ২২ শে শ্রাবণ ১৩৪৮ সাল।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

রোমেল কে ছিলেন?

ফিল্ড মার্শাল আরউইন রোমেল ছিলেন বিখ্যাত জার্মান সেনাপতি। আফ্রিকায় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে তিনি খ্যাতি অর্জন করেন। তাঁর নাম হয় ‘মরুভূমির শৃগাল’। জন্ম ১৮৯১। হিটলার বিরোধিতার জন্য তাঁকে আত্মহত্যা করতে হয় ১৯৪৪ সালে। শত্রুপক্ষেরও তিনি শ্রদ্ধা অর্জন করেছিলেন ট্যাঙ্কের যুদ্ধে তিনি অসামান্য কৃতিত্ব দেখিয়ে ছিলেন।

রকফেলার কে?

জন ডি রকফেলার ছিলেন মার্কিনী ধনপতি। দানশীলতার জন্য তিনি সুপরিচিত ছিলেন। জীবনকাল ১৮৩৯-১৯৩৭। তাঁরই নামে রকফেলার ফাউন্ডেশান।

রোলিলাহিয়া ম্যান্ডেলা কে?

রোলিলাহিয়া নেলসন ম্যান্ডেলা ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট। দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তী স্বাধীনতা সংগ্রামী। টেম্বু উপজাতীয় নেতার পুত্র। জন্ম ১৯১৮। দীর্ঘ ২৭ বছর কারারুদ্ধ ছিলেন। সারা পৃথিবী একদিন তার মুক্তির দাবী জানিয়ে ছিল। তিনি পরে স্বাধীন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম প্রেসিডেন্ট হন।

রেমব্র্যান্ট কে?

পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম চিত্রশিল্পীদের মধ্যে রেমব্র্যান্ট একজন। তাঁর জন্ম হল্যান্ডের লেডেন নগরে ১৬০৬ সালের ১৫ ই জুলাই। শিশু বয়স থেকেই ছবি আঁকায় তাঁর প্রতিভার স্ফুরণ ঘটে। তাঁর বিখ্যাত ছবি ‘বালসাজারের ভোজসভা’ দারিদ্র্যের মধ্যে তাঁর মৃত্যু হয় ১৬৬৯ সালে।

রোনাল্ড রস কে?

রোনাল্ড রস ছিলেন একজন ইংরাজ চিকিৎসক ও বিজ্ঞানী। তিনিই কলকাতার তৎকালীন পি. জি হাসপাতালে গবেষণায় ম্যালেরিয়ার জীবাণু আবিষ্কার করেন। সে জন্য ১৯০২ সালে তিনি নোবেল পুরষ্কার পান। জীবনকাল ১৮৫৭-১৯৩২।

রবার্ট লুই স্টিভেনসন কে?

রবার্ট লুই স্টিভেনসন ছিলেন স্কটল্যান্ডের বিখ্যাত সাহিত্যিক। জীবনকাল ১৮৫০-৯৪ তাঁর বিখ্যাত রচনা হল ‘ট্রেজার আইল্যান্ড’।

রবিশঙ্কর কে?

ভারতীয় সেতার-শিল্পী পণ্ডিত রবিশঙ্কর। জন্ম ১৯২০। পাশ্চাত্য জগতে ভারতীয় যন্ত্রসঙ্গীতকে তিনি প্রভূত জনপ্রিয় করেছেন। তিনি নৃত্যশিল্পী উদয়শঙ্করের ভাই। সেতার ও সরোদে তিনি সমান পারদর্শী ও নতুন ধারার প্রবর্তক।

লিওনার্দো দা ভিঞ্চি কে?

লিওনার্দো দা ভিঞ্চি ছিলেন (১৪৫১-১৫১৯ খ্রীষ্টাব্দের ইতালীয় শিল্পী ও বিজ্ঞানী। শিল্প, বিজ্ঞান, দর্শন, সাহিত্য, গণিত, ভাস্কর্য, শারীরবিদ্যা সব কিছুতেই ছিল তাঁর অসাধারণ পাণ্ডিত্য। তাঁর বিখ্যাত ছবি হল। ‘মোনালিসা’ ও ‘লাস্ট সাপার’। বিমানের কল্পনা লিওনার্দোর মাথাতেই প্রথম খেলেছিল।

ল্যাভয়সিয়ে কে ছিলেন?

ল্যাভয়সিয়ে ছিলেন ফরাসী রসায়ন বিজ্ঞানী। জীবনকাল ১৭৪৩-৯৪। তিনিই প্রথম আবিষ্কার করেন। দহন রাসায়নিক ক্রিয়া। অক্সিজেন তাঁরই আবিষ্কার। ফরাসী বিপ্লবের সময় এই বিখ্যাত বিজ্ঞানী প্রাণ হারান।

লিও টলস্টয় কে ছিলেন?

কাউন্ট লিও নিকোলায়েভিচ টলস্টয় ছিলেন রুশ সাহিত্যিক ও দার্শনিক। জীবনকাল ১৮২৮-১৯১০। অভিজাত পরিবারে তাঁর জন্ম হয়। ক্রিমিয়ার যুদ্ধে তিনি অংশ নেন। তাঁর বিখ্যাত রচনা হল ‘অ্যানা কারেনিনা’ ও ‘ওয়ার অ্যান্ড পীস’।

🔘 Join Our Telegram Chanel – Click Here 🔘

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here