ঠোঁটের যত্ন কিভাবে নেব জানুন কৌশল গুলি

ঠোঁটের যত্নের জন্য আপনার যা জানা উচিত
ঠোঁটের যত্নের জন্য আপনার যা জানা উচিত

আজ আমরা এখানে সঠিক ভাবে ঠোঁটের যত্ন কিভাবে নেবেন সেই সব কিছু নিয়ে জানাবো। ঠোঁটের অযত্নে আপনার সৌন্দর্যের কোন সমস্যা হতে পারে। সেই কারণে ঠোঁটের যত্ন নেবার কৌশল গুলি জেনে রাখুন ।

ঠোঁটের যত্ন কিভাবে নেব জানুন কৌশল গুলি

ঠোঁট সবসময়ই হওয়া উচিত কোমল, মসৃণ এবং স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী আর্দ্র । ঠোঁট শুকিয়ে গেলে ফেটে যাওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পায় । ঠোঁটের চামড়ায় দাগ পড়ে ।

এ অবস্থায় লিপস্টিক লাগালে ভালো দেখায় না । ঠোঁটের জন্যে প্রয়োজন তাই পরিচর্যার । অতিরিক্ত গরম কিংবা ঠান্ডা আবহাওয়া ঠোঁটের ওপর প্রভাব বিস্তার করে । তখন ঠোঁট শুকিয়ে যেতে পারে । বিশেষ করে শীতকালে ঠোঁটের প্রতি বাড়তি নজর রাখতে হবে । শীত শুরু হওয়ার আগেই ঠোঁটের যত্ন নিন । তাহলে ঠোঁটের চামড়া ওঠা, ঠোঁট ফাটা ইত্যাদি থেকে রেহাই পাবেন । ঠোঁটও থাকবে কোমল, মসৃণ ।

যত্ন নেয়ার প্রক্রিয়া

1. প্রতিদিন কুসুম গরম জল দিয়ে ঠোঁট পরিষ্কার করে তাতে কোনো ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম অথবা চ্যাপস্টিক লাগিয়ে রাখুন । এছাড়া রাতে ঘুমোনোর আগে গোলাপ জলে মেশানো গ্লিসারিন জল ঠোঁটে লাগিয়ে শুতে পারেন অথবা ভালো পেট্রোলিয়াম জেলির প্রলেপ লাগিয়ে নিতে পারেন ।

2. গ্লিসারিন জল তৈরির নিয়ম: সমপরিমাণ গ্লিসারিন ও গোলাপ জল অথবা খাবার জল মিশিয়ে নিলেই হলো । তবে একবারে বেশি পরিমাণে বানাবেন না । নষ্ট হয়ে যেতে পারে । তাই অল্প অল্প করে বানিয়ে ব্যবহার করবেন ।

ঠোঁটের ক্ষেত্রে বর্জনীয়

অনেককেই দেখা যায় জিভ দিয়ে ঠোঁট বার বার ভিজিয়ে রাখতে চান, এটি একটি বদভ্যাস । কারো সামনে এরকম করলে দৃষ্টিকটু লাগে । এছাড়া ঠোঁটের ওপর অতিরিক্ত জিভ বোলালে সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে । যেমন-

1. ঠোঁট শুকিয়ে যেতে পারে

2. ঠোঁটে জ্বালা-যন্ত্রণা সৃষ্টি হতে পারে

এছাড়া অতিরিক্ত ঠান্ডা থেকেও এক ধরনের যন্ত্রণার সৃষ্টি হতে পারে । ঠোঁটে ফুসকুড়ির মতো উঠতে পারে । তারপর এগুলো শক্ত হয়ে যায় । দেখে মনে হবে ঠোঁটের ঐ অংশে সর পড়েছে । প্রায় ১০/১৫ দিন থাকার পর তা ঝরে যায় । এটি সাধারণত শীতের শেষ দিকে এবং বসন্তের প্রথম দিকে দেখা যায় ।

এ অবস্থায় সার্জিক্যাল পরিচর্যা করা যায় । এছাড়া এর প্রতিষেধক হিসেবে বাজারে বিভিন্ন ধরনের এন্টি-ভাইরাল ক্রিম পাওয়া যায় । এগুলো ডাক্তারের পরামর্শে ব্যবহার করতে পারেন ।

৩০ বছর পার হওয়ার পরই ঠোঁটে কতগুলো উপসর্গ দেখা দিতে পারে:

1. ঠোঁটের চারপাশে সূক্ষ্ম রেখা বিস্তার লাভ করতে আরম্ভ করে । এছাড়া ঠোঁট ঘন ঘন সংকুচিত করলেও এরকম হতে পারে । যে সব ছেলে-মেয়ে ধূমপান করে তাদের ক্ষেত্রে এ রেখাগুলো বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি । তাই সুন্দর ঠোঁটের প্রত্যাশা করলে এসব অভ্যাস পরিত্যাগ করতে হবে ।

2. সকালে ও রাতে ঠোঁটের যত্নে ঠোঁটে ক্রিম ব্যবহার করুন । রাতে গ্লিসারিন মেখে রাখতে পারেন । তবে গ্লিসারিনের সাথে সম পরিমাণ জল মিশিয়ে নিতে হবে ।

ঠোঁটের মেক-আপ

ঠোঁটের ক্ষেত্রে যে মেক-আপটি ব্যবহৃত হয়, আমরা সবাই জানি তার নাম লিপস্টিক । আর এই লিপস্টিক ব্যবহারেরও কিছু নিয়ম আছে । যেমন:

মুখমণ্ডলের সমস্ত মেক-আপ শেষে লিপস্টিক লাগান । যাদের শুষ্ক ত্বক তারা এমন লিপস্টিক ব্যবহার করুন যাতে তেলতেলে ভাব আছে । আর যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা বেছে নিন বেশি তেলতেলে নয় এমন লিপস্টিক । লিপস্টিক সাধারণত দু-ধরনের দেখতে পাওয়া যায় । পার্লি ও নন-পার্লি । আজকাল পার্লি পেন্সিলও পাওয়া যায় । পার্লি লিপস্টিকে বাড়তি লিপগ্লস ব্যবহার না করলেও চলে ।

ঠোঁটে মেক-আপের পদ্ধতি

ঠোঁট যেমন সরু, মোটা, চ্যাপটা-বিভিন্ন ধরনের তেমনি লিপস্টিক লাগানোর কায়দাও বিভিন্ন ।

1. লিপস্টিক লাগানোর সময় প্রথমে ঠোঁটে একটু পাউডার লাগিয়ে নিলে ভালো হয় । তারপর লিপ পেন্সিল দিয়ে হালকা করে আউট লাইন এঁকে নিন । তারপর ঠোঁটের মধ্যভাগ লিপ ব্রাশের সাহায্যে লিপস্টিক লাগিয়ে ভরে দিতে পারেন অথবা সরাসরি লিপস্টিক দিয়েও ভরে নিতে পারেন । এরপর একটা টিস্যু পেপার দিয়ে চেপে অতিরিক্ত লিপস্টিক রং তুলে ফেলুন ।

2. গ্রীষ্মে দিনের বেলায় কটকটে রঙের লিপস্টিক লাগানো উচিত নয় । তবে রাতে ব্যবহার করতে পারেন-পার্টি বা যেকোনো অনুষ্ঠানে ।

3. শীতের সময় অবশ্য দিনে কিংবা রাতে-দুসময়ই গাঢ় রঙের লিপস্টিক ব্যবহার করতে পারেন ।

4. সাধারণত পোশাকের রঙের সাথে ম্যাচ করে লিপস্টিক লাগালে বেশ স্মার্ট লাগে । তবে মেরুন লিপস্টিক সব পোশাকেই মানায় ।

5. বেশি সরু ঠোঁটে একটু ভারী করে লিপস্টিক লাগান । অপরপক্ষে বেশি মোটা ঠোঁটে চিকন আউটলাইন করে লিপস্টিক লাগান ।

6. চ্যাপটা ঠোঁটে বেশি ছড়িয়ে লিপস্টিক লাগাবেন না । একটু ওভাল শেপ করে লিপস্টিক লাগান, তাতে চ্যাপটা ভাব কম দেখাবে ।

লিপগ্লস

এটি লিপস্টিক ব্যবহার করার পর ঠোঁটের ওপর লাগানো যেতে পারে । এতে ঠোঁট একটু ভেজা ভেজা, উজ্জ্বল, চকচকে দেখায় ।

লিপগ্লস সাধারণত লিপস্টিকের রঙের সাথে মিলিয়ে লাগাতে হয় । লিপগ্লস বিভিন্ন রং- এমনকি স্বচ্ছ রঙেরও হয় । স্বচ্ছ রঙের লিপগ্লস যেকোনো রঙের লিপস্টিকের ওপর লাগাতে পারবেন ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here